Breaking News
Home / সারাদেশ / ভোলা ও বরগুনার দুই শিশুর ঠাঁই হলো আগৈলঝাড়ার ছোট মনি নিবাসে

ভোলা ও বরগুনার দুই শিশুর ঠাঁই হলো আগৈলঝাড়ার ছোট মনি নিবাসে

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় অবস্থিত বিভাগীয় ছোট মনি নিবাস বা বেবী হোমে ঠাঁই হলো ভোলার সুপারি বাগান থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতক পুত্র সন্তান ও বরগুনায় ধর্ষণের ফলে জন্ম নেয়া কিশোরীর শিশু কন্যার।

নবজাতকের আশ্রয়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে বরিশাল সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার সাজ্জাদ পারভেজ জানান, ভোলায় একটি সুপারী বাগান থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতক পুত্র সন্তানকে আগৈলঝাড়ার গৈলায় অবস্থিত বিভাগীয় বেববী হোমে শুক্রবার রাতে হস্তান্তর করা হয়েছে।

অপর দিকে বরগুনা জেলার সদর থানার ফুল চলুয়া গ্রামের ১৬বছরের এক কিশোরীর কন্যার মেয়ে শিশু তাইয়েবাকে (৪) শনিবার দুপুরে বেবী হোমে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আগৈলঝাড়ার অবস্থিত বিভাগীয় বেবী হোমের উপ-তত্ত্বাবধায়কের দ্বায়িত্বে থাকা উপজেলা সমাজসেবা অফিসার সুশান্ত বালা জানান, শুক্রবার রাতে নবজাতককে বেবেী হোমে গ্রহন করা হয়েছে তবে এই সংক্রান্ত কাগজপত্র শনিবার দুপুর পর্যন্ত তার দপ্তরে পৌঁছায়নি।

শনিবার দুপুরে বরগুনা জেলার সদর থানার ফুল চলুয়া গ্রামের ১৬ বছরের কিশোরীর মেয়ে তাইয়েবাকে (৪) বেবী হোমে গ্রহন করা হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, বরগুনা জেলার সদর থানার ফুল চলুয়া গ্রামের সানু ফকিরের ছেলে জহিরুল (১৯) এক ষোড়শী কিশোরীকে ধর্ষণ করে।

এ সংক্রান্ত মামলায় জেলা ও দায়রা জজ শিশু আদালত, বরগুনার বিজ্ঞ বিচারক মো. হাফিজুর রহমান ২০২০সালের ৯জানুয়ারি জহিরুলকে অভিযুক্ত করে দশ বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং ১লাখ টাকা ধর্ষকের পিতার নিকট থেকে আদায় করে ধর্ষিতাকে পরিশোধের আদেশ প্রদান করেন।

ওই আদেশে কিশোরীর গর্ভজাত সন্তান তাইয়েবার বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত সরকার থেকে ভরণ পোষণের দ্বায়িত্বভার গ্রহনেরও আদেশ প্রদান করেন।

আদালতের আদেশের পরে ওই কিশোরী বরগুনা জেলা প্রশাসক ও জেলা শিশু কল্যাণ বোর্ডের সভাপতি হাবিবুর রহমানের কাছে তার শিশু তাইয়েবার ভরণ পোষণের দায়িত্ব গ্রহনের আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক, জেলা প্রবেশন অফিসারের মাধ্যমে বরিশাল বিভাগীয় বেবী হোমে শিশু তাইয়েবাকে শনিবার দুপুরে হস্তান্তর করেছে।

এদিকে শুক্রবার সকালে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার টবগী ইউনিয়নের দালালপুর গ্রামের একটি সুপারি বাগান থেকে সদ্যজাত পুত্র সন্তানকে পুলিশ উদ্ধার করে।

বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির জিডির বরাত দিয়ে জানান, দালালপুর গ্রামের রাব্বি নামে এক যুবক সকাল আটটার দিকে মোটর সাইকেলযোগে এক নারী ও পুরুষ পোটলা নিয়ে সুপারী বাগানের থামে।

পরে তারা পোটলা বাগানে মধ্যে ফেলে রেখে তারা দ্রুত পালিয়ে যায়। দুর থেকে ঘটনা দেখে রাব্বি পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে পোটলার মধ্যে থেকে ছেলে শিশুকে উদ্ধার করে।

ওসির ধারণা, অনৈতিক সম্পর্কের ফসল হিসেবে শিশুটির জন্ম হওয়ায় তাকে বাগানে ফেলে পালিয়েছে। বর্তমানে সুস্থ অবস্থায় থাকা শিশুটির বয়স দুই বা তিন দিন। বিভিন্ন সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে তাদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। তাদের খোঁজ পেলে শিশু সম্পর্কে ও ফেলে রেখে যাওয়ার কারণ জানা যাবে।

About admin

Check Also

জাতীয় কন্যা শিশু দিবসে আগৈলঝাড়ায় র‌্যালী ও আলোচনাসভা

“সময়ের অঙ্গীকার, কন্যা শিশুর অধিকার” এই প্রাতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বরিশালের আগৈলঝাড়ায় জাতীয় কন্যা শিশু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *